দূর পরবাস

সুইজারল্যান্ড ৬৬ দেশের সঙ্গে ব্যাংকের তথ্য লেনদেন করেছে 

প্রকাশ: ১৭ অক্টোবর ২০২০, ৯:৮ পূর্বাহ্ণ
সুইজারল্যান্ড ন্যাশনাল ব্যাংক।
সুইজারল্যান্ড ন্যাশনাল ব্যাংক।
ছবি: লেখক

বিশ্বব্যাপী স্বয়ংক্রিয়ভাবে তথ্য বিনিময়ের আওতায় ব্যাংকিং স্বর্গ বলে খ্যাত আলপাইন দেশ সুইজারল্যান্ড পৃথিবীর ৬৬ দেশের সঙ্গে এ বছর বিভিন্ন গ্রাহকের ব্যাংকিং গোপনীয়তা এবং আর্থিক হিসাবের বিষয়ে তথ্য লেনদেন করেছে। অটোমেটিক এক্সচেঞ্জ অব ইনফরমেশন সংক্ষেপে এইওআইয়ের (AEOI) আওতায় এ কাজ করা হয়। কর ফাঁকি রোধে একটি বিশ্বব্যাপী চুক্তি বাস্তবায়নের আওতায় সুইজারল্যান্ড ২০১৭ সালের পর থেকে প্রতিবছর এ পদ্ধতি অনুসরণ করে সুইজারল্যান্ড ন্যাশনাল ব্যাংক।

৭৫ দেশের সঙ্গে বাহামাস, বাহরাইন, গ্রেনাডা, ইসরায়েল, কুয়েত, মার্শাল দ্বীপপুঞ্জ, নাউরু, পানামা ও সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ এ বছর মোট ৮৬টি দেশকে AEOI–এর আওতায় আনা হয়েছে।

সুইজারল্যান্ড ৬৬ দেশের সঙ্গে ব্যাংকের তথ্য লেনদেন করেছে 
ছবি: লেখক

সুইস ফেডারেল ট্যাক্স অথরিটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিদেশি বা বিদেশি আবাসিক বাসিন্দা যাঁরা নিজেদের দেশেও কর নিয়মনীতির আওতায় পড়েন এ ধরনের প্রায় ৩ দশমিক ১ মিলিয়ন ব্যাংক অ্যাকাউন্টের বিবরণ সরবরাহ করা হয়েছে বিভিন্ন দেশে। বিনিময়ে সুইজারল্যান্ড পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ (৮৬টি) থেকে প্রায় ৮ লাখ ১৫ হাজার সুইস নাগরিক/বাসিন্দাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য পেয়েছে, যা গত বছরের তুলনায় কম। চুক্তির আওতায় ৭৫টি অংশীদার দেশ থেকে ২ দশমিক ৪ লাখ ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য পেয়েছিল সুইজারল্যান্ড।

কারণ কোভিড-১৯ মহামারি দ্বারা সৃষ্ট প্রযুক্তিগত অসুবিধার কারণে ৩৪টি দেশ সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে ডেটা বা তথ্য ভাগ করে নেওয়া স্থগিত করেছে। তবে দেশগুলো বছরের শেষ নাগাদ তথ্য সরবরাহ করবে।

সুইজারল্যান্ড ২০টি দেশের কাছ থেকে তথ্য পেয়েছিল তবে তারা তা গ্রহণ করতে পারেনি। কারণ হিসেবে বলা হয় যে দেশগুলো গোপনীয়তা এবং তথ্য সুরক্ষার (৯টি দেশ) সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক প্রয়োজনীয়তা পূরণ করে না বা তারা (১১টি দেশ) তথ্য গ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত বেছে নিয়েছে।